রাজস্থান ভ্রমণঃ বিকানীর

বিকানীর ঃ মরু-জাহাজ বন্দর

জয়পুরে রাত কাটিয়ে পরের দিন সকালে আমরা রওনা দিলাম বিকানীরের পথে| জয়পুর থেকে বিকানীর এর দূরত্ব বাস পথে প্রায় ৩৩৫ কিমি মানে ছয় থেকে সাড়ে ছয় ঘন্টার পথ | তবে এই পথ এত চওড়া আর প্রশস্ত যে এতক্ষণের যাত্রা গায়েই লাগে না|NH 11 বরাবর আরাবল্লীর বুক চিরে মরু শহর বিকানীর এর দিকে আমরা এগোতে থাকলাম | পথে কোথাও নেমে যদি আলু পরোটা, দই, মির্চি বড়া ইত্যাদি  জলখাবার খেয়ে নিতে পারেন তাহলে সারাদিন আর খাবার এর জন্য সময় নষ্ট করতে হবে না|

20161223_112147.jpg
Enjoyable breakfast with Aloo Paratha, Dahi, Mirchi Bada and what not

 

উট গবেষণা কেন্দ্র

20161223_175354.jpg
National Research Centre on Camel

 

আমাদের বিকানীর পৌঁছাতে প্রায় বিকেল সাড়ে চারটে বেজে গেল| আমরা বিকানীর ঢোকার পথে দেখতে গেলাম National Research Centre on Camel.  ঢোকার মুখেই টিকিট কাউন্টারে পাওয়া গেল উটের দুধের আইস ক্রীম | খেতে খেতে প্রথম অনুভব করলাম যে উট আমার চিন্তায় এতদিন বেশ অবহেলিত ছিল| তাই আর একটা আইস ক্রীম খেয়ে সংকল্প করলাম সম্যক জ্ঞান আহরন করেই  তবে যাবো |এটা এশিয়ার বৃহত্তম উট গবেষণা কেন্দ্র | এখানে মোট চার রকমের উট আছে- Bikaneri, Jaisalmeri, Kachchhi আর Mewari . রং ও শারীরিক গঠন দেখিয়ে গাইড চিনিয়ে দেবে উটের রকমফের |

IMG_4689.JPG
Camels at NRCC

 

৩০০ র ও বেশি উট একসঙ্গে এর আগে কখনো দেখি নি, কেমন একটা গর্ব হতে থাকল| মনে পড়ল লাইন দিয়ে উট ,মোষ আর গরু নিয়ে যেতে দেখেছি ছোটবেলায়, বকরি ঈদের আগে| তবে এখানে উটেদের যত্নয়াত্তি দেখে আর মাত্র ছয় ঘন্টা আগে জন্মানো উট শাবক দেখে বুঝলাম – উটেদের ও একটা নিজস্ব জগত আছে|

IMG_4702.JPG
New born Camel baby

 

উটের দুধের উপকারিতা সম্বন্ধে একটু জেনে নিন|

camel milk.jpg
Why you should drink Camel milk

 

Souvenir Shop এ আছে উটের লোমের থেকে তৈরি গায়ে দেবার চাদর,  উটের চামড়ার ব্যাগ, জুতো; হাড়ের তৈরি মাথার ক্লিপ আরো কত কি! দাম মোটামুটি সাধ্যের মধ্যেই|

IMG_4714.JPG
Souvenir shop at NRCC

 

এরপর সেন্টারের মিউজিয়াম দেখা| উটের খাদ্য শুধু কাঁটা গাছ নয়, বিভিন্ন ধরণের শাকসব্জি আর শস্য থরে থরে সাজিয়ে রাখা আছে এখানে|

20161223_174207.jpg
Camel Feed

 

এছাড়া আছে হরেকরকমের শৌখিন জিনিস যা উটের লোম, হাড় এবং চামড়া দিয়ে তৈরি|

IMG_4716.JPG
Made of Camel Bone
IMG_4719.JPG
Made of Camel Leather

 

বিশাল এলাকা জুড়ে এই কর্মযজ্ঞ দেখে মন ভরে যাবে|

 

করণিমাতা মন্দির

সন্ধ্যের মুখে আমরা পৌঁছালাম দেশনোক গঞ্জ এ করণিমাতা মন্দিরে| ইঁদুরের যে এত কদর কে জানতো!! গোটা মন্দির চত্বরে ছেয়ে আছে লক্ষ লক্ষ ইঁদুর|

IMG_4726.JPG
Karni Mata Temple : Deshnokgunge

 

করণিমাতা ছিলেন এক সন্ন্যাসিনী| এনাকে মা দুর্গার অবতার বলে মনে করা হয়| বিকানীরের দেশনোক ছাড়া ও উদয়পুরের মাচলা পর্বতে এবং আলোয়ারে করণিমাতার মন্দির আছে| কিন্তু একমাত্র দেশনোকের মন্দিরেই ইঁদুরবাহিনী আছে| এখানে সাদা ইঁদুর দেখবার জন্য ভক্তরা দীর্ঘ অপেক্ষা করে | সাদা ইঁদুররা মাতার বংশধর বলে বেশি পবিত্র| অন্য ইঁদুররা ও এখানে অত্যন্ত যত্নে আছে কারণ এরা মায়ের আদেশে ইঁদুর হয়ে আছে|

IMG_4731.JPG
The Idol at the temple

 

মন্দিরের উপরে জাল দিয়ে ঢেকে রাখা যাতে চিল বা অন্য শিকারী পাখি ইঁদুরদের কোনো ক্ষতি না করে| ইঁদুর এর খাওয়া প্রসাদ পাওয়ার জন্য মাতার ভক্তরা বসে থাকে| এমন কান্ড ভারতবর্ষেই ঘটে| এর নাম বিশ্বাস |

IMG_4738.JPG
Holy Rats at karnimata Temple

 

মন্দির চত্বরে বিরাট তামার ঢোলক বাজিয়ে রাজস্থানী লোক সংগীত হয়ে চলেছে| সব মিলিয়ে বেশ ব্যাপারটা বেশ – mousi-cal !

IMG_4743.JPG
Musical Welcome at Karnimata Temple

 

এরপর হোটেল| আমাদের হোটেলের ছাদে গিয়ে দেখি দূরে জ্বলজ্বল করছে লালগড় প্রাসাদ |

IMG_4747.JPG
Lalgarh Palace at night from our hotel

 

রাতে ঘুম আসতে দেরি হয় নি| শুধু দেখলাম ইঁদুরের গায়ে পা পড়ে যেতেই হাত জোড় করে দাঁড়িয়ে পড়েছি আর সেই ইঁদুর কালো চোখে আমার দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে ক্রমশ কালো কাচ্ছি উট হয়ে গেল | তারপর মুখ ভেংচে বলল,”উটেদের বাছবিচার থাকলেও তারা কাঁটা বেছে খায় না|”সবটা শুনে সবাই অবশ্য এর জন্য লংকা বড়াকে দায়ী করলো|

লালগড় প্রাসাদ

ঘন সবুজ গাছগাছালি দিয়ে ঘেরা লাল বেলে পাথরে তৈরি লালগড় প্রাসাদ বানিয়েছিলেন মহারাজা গঙ্গা সিংজী তাঁর পিতা লাল সিংজীর স্মৃতির উদ্দেশ্যে| স্থাপত্যের দিক দিয়ে দারুণ আভিজাত্যপূর্ণ এই প্রাসাদ এখন হেরিটেজ হোটেল হিসেবে ব্যবহৃত হয়|

IMG_4758.JPG
lalgarh Palace : Bikaner

 

এখানে আছে সাদুল মিউজিয়াম ও প্রাচীনা সংগ্রহশালা|

IMG_4756.JPG
Sadul Museum

 

এইসব দেখে নিয়ে চটজলদি চলে চলুন জুনাগড় ফোর্ট দেখতে|

জুনাগড় ফোর্ট

IMG_4777.JPG
Junagarh Fort : Bikaner

 

হ্যাঁ, ফোর্ট বটে একখান! সামনে দাঁড়ালেই একটা সমীহভাব জাগে মনে| কি বিশাল! কি রাজকীয়! পশ্চিমের সূরয পোল গেট দিয়ে প্রবেশ পথ| এখানে ফোর্ট থেকেই গাইড দেওয়া হয়|  ভিতরে ঢুকেই ডান ও বামদিকে সিঁড়ির মত রাজস্থানী স্থাপত্য চোখ টানে|

IMG_4868.JPG
Rajasthani Style Architecture

 

করন মহল

মুঘল আর রাজপুত স্থাপত্যের মেল বন্ধনে তৈরি এই মহল | মহারাজা গজ সিংজী লাহোর ও দিল্লির মোঘল দরবারের শিল্পীদের দিয়ে তৈরি করান এই মহল| এখানে আছে চারটি ছত্রি আছে আর আছে ছোট্ট একটা জলাশয় | হোলি খেলার ব্যবস্থা |

IMG_4780.JPG
Karan Mahal

 

ফুল মহল

রঙ বাহার মহল বললেও চলে| সোনালী রং এ আঁকা ফুলদানি,ফুল, লতা পাতা দেখতে দেখতে যদি আপনি নিজেকে রূপকথার রূপবতী কন্যা বা বসন্তকুমার বলে মনে নাই করেন তবে আপনার রাজস্থান ভ্রমন বৃথা|

IMG_4787.JPG
Phool Mahal

 

অনুপ মহল

আর ফিরে আসার ইচ্ছেটা পুরোপুরি চলেই গেল যখন অনুপ মহলের গিলটি করা রঙীন পৃথিবীতে পা রাখলাম| নিকুচি করেছে চাকরি-ঘর-বাড়ি| ঢিল মারি তোর খোলার চালে| আমার জন্য এই চিত্রবাহার কবে যেন তৈরি হয়েছে! এতদিন অপেক্ষা করেছে আমার স্পর্শের! এই সব কথা মুখ দিয়ে এমনিই আসবে যখন অনুপ মহলের দেওয়ালে আঁকা ছবি আপনার চোখ ধাঁধিয়ে দেবে|

IMG_4790.JPG
Anup Mahal

 

বাদল মহল

বৃষ্টির বড় অভাব এই মরুদেশে| তাই বাদলের আবাহনে এই মহলে| নীল রঙের আধিক্যে -নীল অঞ্জন ঘন | আর আছে— লক্ষ্মী-নারায়ণের যুগল মূর্তি|

20161224_114046.jpg
Badal Mahal

 

গজ মন্দির

রাজা গজ সিংজী আর তাঁর দুই রানীর একান্ত ব্যক্তিগত মহল এই গজ মহল|

IMG_4811.JPG
Gaj Mandir

 

দুঙ্গার মহল

আধুনিক বিকানীর এর স্রষ্টা মহারাজা দুঙ্গার সিংজীর মহল এটি | সাদার ওপর নানান রঙের কারুকার্য| এখানে কুলুঙ্গির মাঝে আছে একটি করে আয়না , তাতে রাজার প্রতিবিম্ব প্রতিফলিত হত| Narcissism এর চূড়ান্ত উদাহরণ আর কি! তবে এখন এসব আপনার| ক্যামেরা আপনার হলে  mirror will take you as the King.

20161224_113317.jpg
Dungar Mahal

 

দরবার হল

এখানে আছে রাও বিকা ( বিকানীর এর স্রষ্টা)র চন্দন কাঠের সিংহাসন | সংরক্ষিত আছে রাজপরিবারের কিছু অস্ত্র |  এরপর আছে বিক্রম বিলাস| এখানে বিভিন্ন রাজাদের হাওদা সংরক্ষিত আছে|

IMG_4849.JPG
Sandalwood throne at Darbar Hall

 

 

জুনাগড় ফোর্ট মিউজিয়াম

Armoury

IMG_4845.JPG
Armoury 1 : Junagarh Fort

 

অস্ত্রসম্ভার রক্ষণাবেক্ষণকে যখন শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া যায় তখন অস্ত্র দেখলে ভয় নয়, মনে ভালো লাগা থেকে যায়|

IMG_4836.JPG
Armoury 2 : Junagarh Fort

 

Rao Bikaji Heirloom Farmans Trust

IMG_4860.JPG
Telegraph Machine : Junagarh Fort

 

বিংশ শতাব্দীর গোড়ার দিকে রাজপরিবার এই ফোর্ট ছেড়ে চলে যায় লালগড় প্যালেসে আর Trust তৈরি করে রাজ পরিবারের ব্যবহৃত জিনিসপত্র এই ফোর্টে দিয়ে যায়|

IMG_4861.JPG
Wooden Dinning Table : Junagarh Fort

 

Transportation

IMG_4864.JPG
Palanquin : Junagarh Fort

 

এখানে বিভিন্ন পালকি ও অন্যান্য যানবাহন সংরক্ষিত আছে যা রাজপরিবার ব্যবহার করতো| সবচেয়ে নজর কাড়ে এই হেলিকপ্টার টি| মহারাজা গঙ্গা সিংজী প্রথম বিশ্বযুদ্ধে Bikaner State Force দিয়ে ব্রিটিশদের সাহায্য করেছিলেন আর তার পুরস্কার স্বরূপ ব্রিটিশরা তাঁকে ১৯২০ সালে জাহাজ ভর্তি করে যুদ্ধে ব্যবহৃত প্রচুর জিনিসপত্র পাঠায়| এসবের মধ্যে ছিল দুটি DH-9DE war plane এর ভাঙা অংশ | বিকানীরের মহারাজা করনি সিংজী ১৯৮৫ সালে শিল্পীদের সাহায্যে সেই সব ভাঙা অংশ জুড়ে একটা গোটা DH-9DE Haviland Plane খাড়া করেন| পুরস্কার বলে কথা!

IMG_4862.JPG
Haviland Plane

 

অথ চিন্তামনি (জুনাগড় ফোর্ট এর পুরোনো নাম) কথা|

 

IMG_4833.JPG
Jafri Art : Junagarh Fort

 

 

বিশাল এর মুখোমুখি হবার পর কি হয় ? তৈরি হয় এক ভীষন শূন্যতা|  সেই শূন্যতা পূর্ণ করতে আমরা গজনের গেলুম| আবার প্যালেস ঢুকতে কেউ আর রাজী না হওয়ায় বাইরে থেকে দেখে ঠিক করলাম রামদেওড়া যাবো|

IMG_4876.JPG
Gajner Palace

ফেলুদার স্মৃতি রোমন্থন করতে| আমাদের ড্রাইভার ও একপায়ে খাড়া , সে অবশ্য ফেলুবাবুর কথা জানে না| সে দেখাবে রামদেওড়াতে রামদেব বাবার ( পতঞ্জলি নয়) মন্দির|

20161224_184839.jpg
RamDev Baba Temple Entrance

 

রামদেববাবাকে প্রণাম জানিয়ে দৌড়লাম ষ্টেশনের দিকে| ষ্টেশনে দাঁড়িয়ে যা অনুভব করলাম তা ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন|

IMG_4893.JPG
Ramdevra : Railway Platform

 

গাড়িতে উঠে যখন রওনা দিলাম জয়সলমীরের দিকে তখন সন্ধ্যে গড়িয়ে রাত আর মনের ভিতরে শিহরণ কখন দেখবো-সোনার কেল্লা|

IMG_4892.JPG
Is  this  Mandar Bose!! ( ref : Sonar Kella- Satyajit Ray)

 

 

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s